ফরেক্স ট্রেডার

 রায়হান রিহাব :

আসলে ট্রেডারদের জীবনের চারটা ধাপ আছে।
১- স্বাধীন ট্রেডার।
২- টেকনিকাল ট্রেডার।
৩- স্ট্র্যাটিজি ট্রেডার।
৪- প্রকৃত স্ট্র্যাটিজি ট্রেডার।

পৃথিবীর সব ট্রেডারকেই প্রথম তিনটি ধাপ অতিক্রম করতে হয়। অর্থাৎ আপনি যেই ধাপেই থাকুন না কেন হতাশ হবার কিছু নাই। বরং মজা নেয়ার চেস্টা করেন- ও আচ্ছা তাই তো আমি তো এভাবেই ভাবতাম বা ভাবি। :D
এই লেখার উদ্দ্যেশ্য আপনার বর্তমান ট্রেডিং স্টেজ সম্পর্কে অবগত করা এবং আপনাকে যত কম সময় এবং কম টাকার অপচয়ে পরবর্তী স্টেজ এ নিয়ে যাওয়ার রাস্তা দেখানো।

স্বাধীন ট্রেডার

প্রথমেই আসি স্বাধীন ট্রেডারে। সব ট্রেডারকেই এই ধাপদিয়ে শুরু করতে হয়। আর আপনার হারানো মূলধন নির্ধারন করবে আপনি কত তারাতারি পরবর্তী ধাপ অর্থাৎ টেকনিকাল ধাপ এ প্রবেশ করবেন। বলে রাখি প্রথম কয়েকটা ডিপোজিট হারানোকে আমি হতাশা না বরং ট্রেডিং কস্ট হিসাবে দেখেন আপনি ফরেক্স এ ব্যাবসা করতে আসছেন এইটা তো সত্য। তো আপনাকে তো শিখতে কিছু খরচ করতে হবে। পড়ালেখা শিখার জন্য বই কিনতে হয় টিউশন নিতে হয় বেতন দিতে হয়। ব্যাবসা করার জন্য যায়গা ভাড়া নিতে হয়, বিল দিতে হয়, ট্যাক্স দিতে হয় ইত্যাদি ইত্যাদি। আর ফরেক্স ব্যাবসায় ট্রেডিং কস্ট হিসাবে লস করতে হয়। :D আমি লস করতে বলতেছি না বলতেছি লস গুলোকে এভাবে ডিফাইন করতে।
যাই হোক, একজন স্বাধীন ট্রেডার ব্যাবহার করে তার নিজস্ব মতামত, অন্যের মতামত এবং বিভিন্ন অযায়গা কুযায়গা থেকে প্রাপ্ত ডাটা। সে কোন ধরনের নিয়ম মানে না সে শুধু দেখে তার ইচ্ছা এবং সেই ইচ্ছা কে বাস্তবায়ন করার কোন একটা ক্লু। ঐ একটা ট্রেডে যদি সে লস করে তাহলে সাথে সাথে নিয়ম পরিবর্তন করে ফেলে এবং দিন শুরুতে একভাবে ট্রেড করতে থাকলে দিন শেষে অন্যভাবে। অর্থাৎ সে ইমোশন ট্রেডিং করে মার্কেট না। ভাবে মার্কেটকে একহাত দেখে নিব আজ। তাদের মধ্যে একই সাথে ভয় এবং লোভ কাজ করে। মাঝে মাঝে তারা ইন্ডিকেটর ইউজ করে। মার্কেটের উপর এক ধরনের ফ্যাসিনেশন কাজ করে এবং তারা এক পলকে একটা ট্রেড এ এন্ট্রি নিয়ে নেয়। মার্কেটের কাছে প্রার্থনা করে যেন মার্কেট তার ফেবার এ যায়।
তাহলে তারা প্রথমত ব্যাবহার করে অনুমান দ্বিতীয়ত ব্যাবহার করে কোন হট সিগনাল। আসলে তাদের মধ্যে একধরনের এক্সাইটমেন্ট কাজ করে, সেক্স এর সাথে তুলনা করা যায়। অর্থাৎ খানিক সময়ের প্রবল আনন্দ। মার্কেটে থাকার প্রতি একধরনের ভালোবাসা।একটা অধৈর্য সময় এর আনন্দ।সবচেয়ে বড় ব্যাপার হল তারা মনে করে টাকা কামানো খুবই সহজ এবং আমাকে শুধু অন্যদের থেকে বুদ্ধিমান এবং দ্রুত কাজ করা শিখতে হবে।
একটা সময় পরে বা বেশ কিছু টাকা হারানোর পরে তারা ইন্ডিকেটরের শরনাপন্ন হয়। ইন্ডিকেটরের উপরে নির্ভর করে এমন না বরং ইন্ডিকেটরকে তাদের অনুমানের সাথে মিলানোর চেস্টা করে। এমন অবস্থায় তারা নিজেদের স্ট্র্যাটিজি ট্রেডার দাবী করে। এমন যে আমার স্ট্র্যাটিজি হল আমি মুভিং এভারেজ, স্টোকাস্টিক আর নিউজের সমন্বয়ে ট্রেড করি। হতে পারে তা খানিক সময়ের জন্য প্রফিটেবল কিন্তু ট্রেডিং ডিসিপ্লিন সম্পর্কে তার কোন ধারনাই নাই। তারা ধীরে ধীরে কিছু প্রশ্নের উত্তর পায় এবং টেকনিকাল ট্রেডার এ পরিনত হয়।

টেকনিকাল ট্রেডার

একজন টেকনিকাল ট্রেডার ব্যাবহার করে ইন্ডিকেটর, নিউজ। টেকনিকাল ট্রেডার হিসাবে সে বুঝতে পারে নিয়ম মানার প্রয়োজনীয়তা। ট্রেড এ প্রবেশ এর পূর্বের কনফারমেশন এর প্রয়োজনীয়তা। সে কিছু রুল বানায় কিন্তু মাঝে মাঝে তা ফলো করে মাঝে মাঝে না। ব্যাপারটা নির্ভর করে আজ দিনে তার মানসিক অবস্থা বা আজ সে কি পরিমান লাভ বা লস করে তার উপর। বিভিন্ন রকমের ইন্ডিকেটর টেস্ট করতে থাকে আর ভাবতে থাকে ও আচ্ছা এই ইন্ডিকেটর টা ভাল এইটা ভাল সিগনাল দেয়। নানা রকমের ইন্ডিকেটর ট্রাই করতে থাকে এভাবে তার ইন্ডিকেটরের উপর এক ধরনের ফ্যাসিনেশন তৈরী হয়। ভাবে কেউ একজন হয়ত যে এই ইন্ডিকেটর টা সঠিক ভাবে ব্যাবহার করতে পারে। কেউ একজন হয়ত আছে যে কোন যাদুবলে একটা ইন্ডিকেটর তৈরী করতে পারছে যা দ্বারা কোটি কোটি টাকা কামানো যাচ্ছে। হলি গ্রেইল এর মত। এমনকি সে হলি গ্রেইল ইন্ডিকেটর নামে সার্চও দেয়। সে ভাবে আমার কেবল এমন একজনকে খুজতে হবে যার কাছে এমন কোন ইন্ডিকেটর আছে।
এখন সে ইন্ডিকেটরের উপর নির্ভরশীল সে তখনই বাই করবে যখন এডিএক্স উপরে মুভ করতে থাকে এবং ম্যাকডি পজেটিভ। তখনই সেল করতে থাকে যখন আরএসআই ওভারবট। এই পর্যায়ে এসে সে বুঝতে পারে স্টপ লস এর মূল্য। সে রিস্ক ম্যানেজ করতেও শিখে। সে ভাবে যে করেই হোক আমাকে মার্কেটে থাকতে হবে। এতে তার লস এর পরিমান কমে এবং আগের চেয়ে বেশী পরিমান ট্রেড করতে পারে। এমন অবস্থায় সে ভাবতে থাকে মার্কেট সবসময় একরকম থাকে না। অস্থির মার্কেটে না থেকে আমার বরং তখন মার্কেটে আসা উচিত যখন কোন বড় মুভ আসবে।
সে এখন আরেক লেভেলে আসে যখন সে মার্কেট কে প্রেডিক্ট করতে শুরু করে। ইন্ডিকেটরের ব্যবহার কমিয়ে সে এখন এলিয়ট ওয়েভ বা ফিবোনাচ্চি রিট্রেসমেন্ট এর দিকে নজর দেয়। অর্থাৎ সে অনুমান করতে শুরু করে কখন মার্কেট সাইডওয়েজে থাকবে কখন ট্রেন্ড নিবে। ব্যাপারটা খুবই গুরুত্তপূর্ন কখন মার্কেট সাইডওয়েজ এ থাকবে এবং কখন ট্রেন্ড এ আসবে কিন্তু তার এই এনালাইসিস ধীরে ধীরে ভুল হতে থাকবে। ব্যাপারটা সে এইভাবে দেখবে যে আমি ভাবছিলাম আমি ২য় ওয়েভে আছি কিন্তু মার্কেট আসলে ৩য় ওয়েভে ছিল এবং আমি যদি আমার আগের ইন্ডিকেটরগুলো ব্যাবহার করতাম তাহলে আমার ভুল হত না।
আসলে সে বুঝতে পারে যে কোন ইন্ডিকেটর বা টুল কিছুই মার্কেট কে প্রেডিক্ট করতে পারে না। সে বুঝতে পারে আসলে আমার কেবল ভাবতে হবে আমার এনালাইসিস এর প্রোবাবিলিটি কেমন এবং আমি আমার রুল গুলো মানছি কিনা।
আমরা এই সময়ে এসে বুঝতে পারি একটা স্ট্র্যাটিজির মুল্য। সে একটা স্ট্র্যাটিজি ডেভেলপ করা শুরু করে।

স্ট্র্যাটিজি ট্রেডার

একজন স্ট্র্যাটিজি ট্রেড করেন স্ট্র্যাটিজি। স্ট্র্যাটিজি হল একটা এন্ট্রি বা এক্সিট প্ল্যান যা নির্ধারিত হয় পূর্ববর্তী গ্রহনযোগ্য ডাটা থেকে। একজন স্ট্র্যাটিজি ট্রেডার কাজ করেন বেশ কিছু নিয়মের সমন্বয়ে এবং কখনোই নিয়মের বাইরে ট্রেড করেন না। যদি না সে অন্য কোন স্ট্র্যাটিজি ফলো করতে চায় একই সাথে। স্ট্র্যাটিজি বাই করতে বললে বাই করে এবং সেল করতে বললে সেল করেন।
আসলে একজন স্ট্র্যাটিজি ট্রেডার নিয়ম ফলো করে কারন সে এই নিয়ম গুলো বানাতে অনেক সময় নিয়েছে। নিয়মগুলো নিজ হাতে বানানো এবং পরীক্ষিত অনেক বছরের হিস্টোরিকাল ডাটা থেকে। তারও ইমোশন হয়ত কাজ করে অন্য কোন এন্ট্রি নেয়ার জন্য কিন্তু সে এই স্টেজ পার করে আসছে অনেক আগেই।
এখন আর সে কোন গুরু, হলি গ্রেইল, হট নিউজ এর প্রত্যাশা করে না। মার্কেট প্রেডিক্ট করার কোন প্রয়োজন বোধ করেন না তিনি। ধীরে ধীরে তিনি ব্যাবসায়ী হয়ে উঠছেন।
একজন স্ট্র্যাটিজি ট্রেডার এর সবচেয়ে বেশী যে জিনিষ টা লাগে তা হল নির্ভরযোগ্য ডাটা। এমন ডাটা যা সে তার স্ট্র্যাটিজির সাথে মিলাতে পারে এবং স্ট্রাটিজি এর উন্নতি করতে পারে।
আমার কাছে মনে হয় ফরেক্স এর প্রোডাক্ট হল স্ট্র্যাটিজি। মানে ব্যাবসায় তো একটা প্রোডাক্ট বা সার্ভিস থাকতে হয় যা বেচে আপনি প্রফিট করবেন। আসলে আমার কাছে মনে হয় আমরা ডলার পাউন্ড বাই সেল করি না বরং সেল করি আমাদের স্ট্র্যাটিজি। আমি ইঞ্জিনিয়ারিং পড়তে এসে কোয়ালিটি কন্ট্রোলের একটা কোর্স করতেছি। আমি জানি যে প্রোডাক্ট এর কোয়ালিটি কন্ট্রোল একটা নেভার এন্ডিং জার্নি। তাই বলতেছিলাম যদি কিছু চেঞ্জ করতে হয় তাহলে আপনার  স্ট্র্যাটিজির কোয়ালিটি চেঞ্জ করেন এর উন্নতি করেন ধীরে ধীরে।
বলছিলাম নির্ভরযোগ্য ডাটার কথা। আপনাকে প্রথমেই যেই জিনিষটা জানতে হবে তা হল নির্ভরযোগ্য এবং অনির্ভরযোগ্য ডাটার পার্থক্য। অনির্ভরযোগ্য ডাটা হল তাই যা মোটামুটি ন্যাচারাল অর্থাৎ খুব কমই প্রেডিক্ট করা যায়। উদাহরন হিসাবে পলিটিসিয়ান দের বক্তৃতা কখনোই নির্ভরশীল কিছু হতে পারে না। কারন সে আজ একটা কথা বলবে কাল অন্য।
নির্ভরযোগ্য ডাটার উদাহরন হিসাবে বলা যেতে পারে মাসিক আর্নিং রিপোর্ট, আনইমপ্লোয়মেন্ট রিপোর্ট, ইন্টারেস্ট রেট ইত্যাদি।  তো একজন স্ট্র্যাটিজি ট্রেডার এই নির্ভরযোগ্য ডাটার সাথে সংমিশ্রন ঘটান তার স্ট্র্যাটিজির। এইটাই হল একজন টেকনিকাল ট্রেডার এবং একজন স্ট্র্যাটিজি ট্রেডার এর মূল পার্থক্য।
এখন একজন স্ট্র্যাটিজি ট্রেডার শিখতে পারছেন যে কোন কিছু হঠাত করে ভাল লাগলেই যে তা লং টার্ম এ প্রফিটেবল হতে পারে তা নয়। সবচেয়ে বড় প্রাপ্তি হল সে একটা কনফিডেন্স পেয়েছে যা আসে কেবল মাত্র কনসিস্ট্যান্ট প্রফিট থেকে যা কম কিন্তু নিয়মিত।
ট্রেডিং এর সাথে দীর্ঘক্ষন থাকার ফলে সে জানতে পারে রিস্ক কন্ট্রোলের সুফল। অর্থাত জানতে পারে সে যদি স্টপ লস খুব কাছে দেয় তাহলে তার স্ট্র্যাটিজিতে প্রচুর ট্রেড করতে হবে এবং উপার্জন ও হবে কম। সর্বোপরি সে এখন আর কারও উপর নির্ভর করে না ট্রেডিং সিগনাল বা আইডিয়া এর জন্য।
একজন স্ট্র্যাটিজি ট্রেডার নিজেকে চিনতে পারে খুব দ্রুতই। সে এমন প্যারামিটার তার স্ট্র্যাটিজিতে সেট করে যা তার পারসোনালিটির সাথে যায়। এইখানে পারসোনালিটি বলতে বোঝায় কি পরিমান রিস্ক সে নিতে পারে বা কি পরিমান টাকা হারালে সে স্বাভাবিক থাকতে পারে। তাই এমন কোন স্ট্রাটিজি ডেভেলপ করার কোন মানেই হয় না যাতে তার পারসোনালিটির রিফ্লেকশন না থাকে।

 

প্রকৃত স্ট্র্যাটিজি ট্রেডার

একজন প্রকৃত স্ট্র্যাটিজি ট্রেডার শিখতে পেড়েছে ক্যাশ ম্যানেজমেন্ট প্রিন্সিপাল, বিভিন্ন মার্কেটে ট্রেডিং এবং প্রতিটা মার্কেটে ভিন্ন ভিন্ন স্ট্র্যাটিজি ফলো করতে।
প্রথমেই ক্যাশ ফ্লো ম্যানেজমেন্ট বা মানি ম্যানেজমেন্ট। একজন প্রকৃত স্ট্র্যাটিজি ট্রেডার এর সবচেয়ে বড় প্রাপ্তি সে বুঝতে পারে লং টার্ম প্রফিটের একমাত্র উপায় হল মানি ম্যানেজমেন্ট। কোন ইন্ডিকেটর না। সে মার্কেট প্রেডিক্ট করা ছেড়ে দিয়েছে এবং হলি গ্রেইল এর অনুসন্ধানও এখন বন্ধ। একজন প্রকৃত স্ট্র্যাটিজি ট্রেডার বলতে পারে  “হ্যা আমার অবশ্যই ভাল ইন্ডিকেটরের প্রয়োজন আছে এবং আমার ফেবারিট কিছু ইন্ডিকেটরও আছে কিন্তু আমার মনে হয় আমি যে কোন ইন্ডিকেটরকেই প্রফিটেবল করতে পারব” ।
মানি ম্যানেজমেন্ট এবং রিস্ক কন্ট্রোল  হল তার সবচেয়ে চিন্তার বিষয়। সে ভাবে আমার স্টপ লস টা কি সঠিক যায়গায় হল? এর জন্য আমার কি পরিমান রিস্ক নিতে হচ্ছে?

একজন প্রকৃত স্ট্র্যাটিজি ট্রেডার কেবল একটা মার্কেট ট্রেড করেন না। কারন কেবল একটা মার্কেট ট্রেড করলে তাকে প্রচুর সময় অপেক্ষা করতে হয় বড় কোন মুভ এর জন্য। যত বেশী মার্কেট ট্রেড করা যায় তত বেশী সুযোগ বড় বড় মুভ হাতে পাওয়ার জন্য।
আরেকটা বড় যে বিষয়ে তিনি অবগত থাকেন তা হল কখনোই সব মার্কেটে একই স্ট্র্যাটিজিতে ট্রেড করা যায় না। তিনি বিভিন্ন মার্কেট এর জন্য বিভিন্ন রকম স্ট্র্যাটিজি ডেভালপ করে থাকেন। অর্থাৎ ধরেন আপনি ট্রেন্ড ট্রেডার এবং আপনি তাতে ভালই করছেন কিন্তু আপনি সেই সাথে সাথে এমন একটা স্ট্র্যাটিজি ডেভেলপ করলেন যাতে মার্কেট যখন সাইডওয়েজে থাকে তখনো আপনি কিছু ডলার কামাতে পারছেন।

একজন স্ট্র্যটিজি ট্রেডার এর সুবিধা

আমার বিশ্বাস একটা ভাল ট্রেডিং স্ট্র্যাটিজি অন্য যেকোন উপায়ের চেয়ে বেশী প্রফিটেবল। শুধু এই একটা কারন তা না। সবচেয়ে বড় সুবিধা হল আপনি একটা শান্তির ঘুম পাবেন একটা ভাল স্ট্র্যাটিজির কাছ থেকে। মার্কেটে যাই ঘটুক না কেন আপনি   নিশ্চিত লং রানে আপনিই সফল হবেন। আর আরেকটা ব্যাপার হল আপনার স্ট্র্যাটিজির সর্বোচ্চ ড্রডাউন থেকে আপনি ধারনা পাবেন কি পরিমান ক্যাপিটাল আপনার প্রয়োজন। কোন ধরনের সারপ্রাইজ থাকবে না আপনার একাউন্টে।
তাহলে এখন আপনি দেখুন আপনি কোন স্টেজ এ আছেন আপনার কি করতে হবে তা পরিস্কার হওয়ার কথা তা হল একটা ভাল ট্রেডিং স্ট্র্যাটিজি কিভাবে দাড় করানো যায় তা নিয়ে ভাবা। আপনার সাফল্য কামনা করছি।

জীবনচক্র বললাম কারন একজন সফল ট্রেডার অনেক নতুন ট্রেডার এর জন্ম দেয়। অনুপ্রেরনা হয়ে থাকে সারাজীবন।

নিয়মিত ফরেক্স টিপস, ট্রিকস এন্ড ইনফরমেশনের জন্য আমাদের লাইক করুন

Please Leave a Reply