সেরা ট্রেড , ট্রেডার

আমরা অনেকেই কম বেশি ”জর্জ সরস” এর কথা জানি| ব্লুমবার্গ বিলিয়নেয়ার লিস্ট এ টপ ২০ তে পাবেন উনাকে, জর্জ সরস কে নিয়ে নতুন করে বেশি কিছু  বলার নাই আসলে, ২০১২ এর শেষ দিকে যখন USDJPY এ  BOJ ইন্টারভেনসন শুরু করলেন তখন জর্জ সরস ইয়েন শর্ট করে প্রায় ১ বিলিয়ন পকেটে পুরেছেন এর আগে অজি (AUDUSD) শর্ট করে ১৮ ঘন্টায় ৬০ মিলিয়ন পকেটে পুরেছেন| জর্জ সরস কেবল (GBPUSD) শর্ট করে এক ট্রেড এ ১ বিলিয়ন আয় করেছিলেন| কারেন্সি মার্কেট এর সেরা খেলোয়াড় জর্জ সরস তবে জর্জ ছাড়াও আরো কিছু ট্রেডার ও ভালো কিছু ট্রেড করেছিল| আজকে আমরা ৩টা টপ ট্রেড এর কথা জানব|

ট্রেড নাম্বার ৩  :

আন্ডি ক্রিগার VS কিউইই (NZDUSD)

১৯৮৭ সালে আন্ডি ক্রিগার একজন কারেন্সি ট্রেডার ছিল ” ব্যাঙ্কার ট্রাস্ট” এ. ক্রুগার ব্লাক মানডে ক্রাশ এর পর NZD এর র্যালি অবজার্ভ করছিলেন এবং ক্রুগার একটা আরবিট্রেজ এর সুযোগ দেখতে পান | ক্রুগার NZDUSD শর্ট করা শুরু করলেন প্রায় ১০০ মিলিয়ন ডলার এবং কথিত আছে তার সেল অর্ডার নিউজিল্যান্ড এর মানি সাপ্লাই এক্সিড করে গিয়েছিল| ওই হিউজ সেল প্রেসার এর সাথে ফান্ডামেন্টালি ওভারভ্যালুড এবং অপ্রতুল মানি সাপ্লাই এর কারণে NZD শার্প ফল করা শুরু করে এবং প্রায় ৩-৫% ফল করে এবং ক্রুগার মিলিয়ন এর উপরে আয় করেন|

ট্রেড নাম্বার ২  :

স্ট্যানলি ড্র্রুকেনমিলার এর দুটি ট্রেড জার্মান মার্ক এ 

স্ট্যানলি ড্র্রুকেনমিলার জার্মান মার্ক এ লং ট্রেড দিয়ে মিলিয়ন এর উপরে কামিয়েছিলেন ওই সময় তিনি জর্জ সরস এর ”কোয়ান্টাম ফান্ড” এ একজন ট্রেডার হিসেবে কাজ করতেন |

ড্র্রুকেনমিলার প্রথমবার মার্ক বাই করেন ”বার্লিন ওয়াল ফল” এর পর ইস্ট এবং ওয়েস্ট জার্মান রিউনিফিকেশন এর জন্য জার্মান মার্ক তার গ্রাউন্ড হারাচ্ছিলএবংএমন জায়গায় যেখানে র্ড্র্রুকেনমিলার দেখলেন টু লো টু সেল | ড্র্রুকেনমিলার তখনই মাল্টি মিলিয়ন ডলার এর বাই করলেন ফিউচার র্যালিতে এবং জর্জ সরস তাকে বললেন ২ বিলিয়ন জার্মান মার্ক পর্যন্ত বাই করতে | সবকিছুই পরিকল্পনা মত হয়েছিল এবং ড্র্রুকেনমিলার মিলিয়ন ডলার আয় করেছিলেন যেটা কোয়ান্টাম ফান্ড এর এর আয় ৬০% এ নিয়ে গিয়েছিল | তার কিছু বছর পর যখন জর্জ সরস ব্যাংক অফ ইংল্যান্ড ব্রেক করছিলেন

তখন ড্র্রুকেনমিলার আবার মার্ক এ লং নিচ্ছিলেন, উনি চিন্তা করছিলেন সরস এর বেট এর কারণে ব্রিটিশ পাউন্ড মার্ক এর বিপরীতে দুর্বল হবে ড্র্রুকেনমিলার কনফিডেন্ট ছিলেন সরস এর পজিশন ঠিকই ছিল| ড্র্রুকেনমিলার এর বিশ্বাস ছিল ব্রিটেনকে লেন্ডিং রেট কমাতে হবে এবং উইক পাউন্ড এক্সপোর্ট বুস্ট করবে | এই ট্রেড থেকেও ড্র্রুকেনমিলার অনেক ডলার কামিয়েছিলেন |

ট্রেড নাম্বার ৩  :

জর্জ সরস Vs ব্রিটিশ পাউন্ড 

এই ট্রেড নিয়ে কি বলব আমার মনে হয় সরস এর এই ট্রেড সম্পর্কে সবাই জানেন| BOE ইনভেস্টরদের আকৃষ্ট করার জন্য তার রেট বাড়াচ্ছিলো এবং বাড়াতে বাড়াতে ডাবল ডিজিট পর্যন্ত চলে গিয়েছিল ওই অবস্থায় জর্জ সরস GBP শর্ট করছিলেন উনি বুঝতে পেরেছিলে অত হাই লেন্ডিং রেট মেইন্টেইন করা সম্ভব হবে না এবং কোনো ফল আনবে না সুতরাং BOE কে দ্রুত রেট কমাতে হবে এবং হয়েছিল সেটা| BOE বুঝতে পেরেছিল পাউন্ড কে কৃত্তিম ভাবে বাড়াতে গেলে বিলিয়িনস এর উপরে লস দিতে হবে তাই তারা ERM থেকে বের হয়ে আসলো এবং জর্জ সরস শুধু মাত্র একটা ট্রেড থেকে ১ বিলিয়ন আয় করেছিলেন

Please Leave a Reply