ট্রেডিং সাইকোলজি
ট্রেডিং সাইকোলজিঃ
পহেল ফাল্গুনে আমরা সত্যই ফুল ফোটার অপেক্ষায় থাকি । গায়ে একটা পাঞ্জাবী লাগিয়ে বউ অথবা গার্লফ্রেন্ড নিয়ে বিকেলটা একটু ঘুরে আসি । ফরেক্স ট্রেডিং ট্রেডারদের কাছে অনেকাংশে প্রেম-ভালোবাসার পর্যায়ে চলে যায়, মাঝে মাঝে এমনও প্রশ্নের সম্মুক্ষিন হতে হয় লাইফ পার্টনার থেকে “তোমার কাছে আমার চেয়ে তোমার মাকের্ট বেশি প্রিয়” তাকে কিভাবে বুঝায় কি মায়াই বেঁধেছে আমায় এই ফরেক্স মাকের্ট। সে আমার একাউন্ট ০০ করে দিলেও থাকে ছেড়ে থাকা যে বড় দায় ! তাই ভালো কোন পজিশন পাই বা নাই পাই আমরা নিজেদের ট্রেড করেই যায়। আস্তে আস্তে সত্যিই ফুল ফোটে। প্রথমে আপনার ব্যালেন্স এ লাল রঙ এর ফুল দেখা যায়, কি সুন্দর তার নাম “মার্জিন কল” ফ্লাওয়ার । তারপর গোল গোল “জিরো” ফ্লাওয়ার । এই ফুল গুলো শুধু সৌন্দর্যেই আপরূপ তা নয়, আপনার মনকেও বিমোহিত করে উদাস করে দেয়ার সকল ক্ষমতা রাখে এরা । আমি দেখেছি এই ফুল ফোটার সময় সবাই টার্মিনাল এর দিকে হা করে তাকিয়ে থাকেন এবং মুখ দেখে মনে হয় সেই সৌন্দর্য্য উপভোগ করছেন ।

ফরেক্স ট্রেডিং হল মানি মেকিং বিজনেস এইজন্য অনেকেই একে বলেন ‘মানি মেশিন’, এখানে নিখাদ সাহিত্যের কোন স্থান নেই । একটা ট্রেড নেওয়ার আগে সব সবকিছু দেখুন , বুঝুন , পরিকল্পনা শেষ করে তবেই এন্টি করুন । ধরেন আপনি একটি ট্রেডিং সিস্টেম ফলো করছেন যেখানে ৫ টি রুলস আছে , আপনি সবগুলো রুলস মেনে এন্ট্রি নেন । সচরাচর দেখা যায় অনেকেই সব কন্ডিশন পূরন হওয়ার আগেই এন্ট্রি নিয়ে নেন, যুক্তি দেখান যে – ‘মনে হয় যাবে’ তাই এন্ট্রি নিয়ে নিয়েছি। লোভের বশে সব নিয়ম না মেনে এন্ট্রি নেওয়াকে বিজনেস বলে না, বলে সাহিত্য এবং ব্যবসায়ীর ভাষায় জুয়ারী । যদি একটু সময় দিয়ে পূর্বের লসগুলোকে নিয়ে কিছুক্ষণ সময় এনালাইসিস করেন তবে দেখবেন যে আপনার ৯০% লসের কারণ কিন্তু এটিই ।

“উড়ু উড়ু মন টার্মিনাল এ ঘুরে সারাক্ষণ, শুধুই মনে হয় এই যেন অকারন”

সত্যি বলতে কি , আমাদের সবার মাঝে কম বেশী এই অভ্যাসটা বিধ্যমান আছে। দেখা যায় কোন কিছুই নেই করার তারপরও কারন ছাড়াই বিভিন্ন পেয়ার এর চার্ট খুলে, টাইমফ্রেম চেঞ্জ করে করে আমরা অযথা এনালাইসিস করি যেখানে একে এনালাইসিস বলাটাও সম্মানহানী তুল্য । এর ফলেই অনেক সময় আমরা নিজেদের ট্রেডিং সিস্টেম এর বিপরীতে যেয়ে ট্রেডে এন্টি নি এইভেবে হিট হয়েও যেতে পারে ! কিন্তু একবার যদি এই টাইপ ট্রেড থেকে প্রফিট আসে তবে আমাদের মাঝে এটি পুনরায় করার প্রবণতা বেশি দেখা যায় যতক্ষণ পযর্ন্ত না আমরা বড় কোন লসের সম্মুক্ষীন হচ্ছি এই সিস্টেমে ! আর যদি একবার লস করি কোন সিস্টেমে তবে ওই সিস্টেমে আর আমি নাই টাইপ ব্যবহার দেখাই সবর্দা । আমাদের এমন অভ্যাস তৈরি করা উচিত যার মাধ্যমে আমরা নিজেরাই নিজেদের মনকে নিয়ন্ত্রণ করতে পারি, যেমন – আপনি ট্রেড নিয়েছেন , মাকের্ট অনুযায়ী প্রফিট করেছেন এবং দেখতে পাচ্ছেন আজকে আর কোনো ট্রেড এন্টি নেওয়ার মত পজিশন নাই । তবে কেন আপনি এই অযথা এনালাইসিস করে সময় নষ্ট করছেন টার্মিনালে বসে । মাঝে মাঝে এমন ব্যবহার দেখলে মনে হয় – আপনি যেন নতুন কিছু আবিষ্কারের নেশাই মত হয়েছেন এবং করেই ছাড়বেন ! আগে কিছুটা অভিজ্ঞতা অর্জন করুন , প্রফিট করুন , কিছু টাকা ঝুলিতে ভরে নিন , তারপর না হয় ভাস্কো ডা গামার মত নতুন কিছুর সন্ধান করবেন । আজকে যদি তার জাহাজ ভর্তি খাবার আর রসদ না থাকত তাহলে মাঝ সমুদ্রেই মরে পড়ে থাকত, নতুন জায়গা আবিষ্কার করা হত না । তেমনি আগে প্রফিট করেন, অযথা মাকের্ট প্রয়োজনের অতিরিক্ত এনালাইসিস করতে যাবেন না, যদি সময় থাকে তবে শিক্ষনীয় আর্টিক্যাল পড়ুন নতুন কিছু জানুন যা আপনার বর্তমান স্ট্রাটেজিকে আরও অধিক শক্তিশালী করবে । মাকের্টে লুকোচুরি করতে বসলে মাকের্ট আপনাকে ট্রেডার থেকে যেকোন মূহুত্বে জুয়াড়ীও বানিয়ে দিতে পারে !

“বেদের মেয়ে জোসনা আমায় কথা দিয়েছে, আসি আসি বলে জোসনা ফাকি দিয়েছে”
বাংলা সিনেমার ইতিহাসে এটি এখন পর্যন্ত সবচেয়ে বড় ব্যবসা সফল ছবি, এবং এর রেকর্ড এখনো ভাঙতে পারেনি কেউ । এত আহামরি কিছুই ছিল না এই ছবিতে, তবুও রেকর্ড । একটা ট্রেড প্রফিট হলে আমরা যেমন সবর্দাই বলে থাকি , আরে ভাই আমি জানতাম জানতাম প্রফিট হবেই আমাকে প্রফিট না দিয়ে মাকের্ট ফালাবে কোথায় । লস খেলে বলি , এটা তো হবার কথা ছিল না , হায়রে কপাল ট্রেডটা দেয়ার আগেই তো বাম চোখ দিছিলো লাপ উপরে কিছুটা ‘বুঝতে পারিনি আমি’ লসের জন্য আমার বেড লাগটাই বেশী দায়ী । ফরেক্স মার্কেট ঐ বেদের মেয়ের জোসনা নয় যে আপনাকে সবর্দা প্রফিট দেয়ার প্রমিজ করে ট্রেডার বানিয়েছে ! এইখানে লাভ এবং লস হল একই মুদ্রার দু’টি ভিন্ন পিট । দুটোই ফরেক্স মাকের্টের জন্য স্বাভাবিক ঘটনা । ফরেক্সে ট্রেড শুরু হয় লস (যাকে ব্রোকার স্প্রেয়াড বলে) দিয়ে । এই সবের মধ্যে থেকেই আপনাকে ধারাবাহিকতা বজায় রেখে ট্রেড করে যেতে হবে । যেইভাবে মনপ্রাণ দিয়ে প্রফিটকে আপন ভাবছেন ঠিক সেইভাবে লসকেও স্বাগত জানাবেন নাইলে ‘বুকটা ফাইট্টা যাই’ গান গাই গাই ঘুমাতে হবে সেই রাত ! আমাদের প্রথম করণীয় হল নিজেদের জন্য ভাল একটি মানি ম্যানেজমেন্ট ফলো তৈরি করে নেয়া যাতে বড় মাপের লসকে এড়িয়ে যাওয়া যায় এবং লস হলেও আমরা যেন স্বল্প সময়ের ব্যবধানে সেটি রিকভার করতে পারি । লাভ করলে অতিরিক্ত উৎসাহী হয়ে যাওয়া আর লস করলে আফসোস করা এই আবেগগুলো দূর্বল মানসিকতা যা শুধু ফরেক্স ট্রেডিং নয় জীবনে প্রতিটি ধাপে আমাদের মানসিক ভাবে আমাদের দুর্বল করে দেই এবং ফলাফল হিসেবে পরাজয়ই হল শেষ পরিণতি ।
মানসিক

“চুমকি চলেছে একা পথে, সঙ্গী হলে দোষ কি তাতে”
প্রথম দিকে যখন আমরা যখন ট্রেড করতাম তখন মাঝে মাঝে প্রায়ই আমার নিজেরই এমন হত । একটা ক্যান্ডেল দেখছি একদিকে সুন্দর মুভ দিচ্ছে, মাকের্ট একটু উপরে বা নিচে স্পীড বাড়িয়ে দিলেই আমাদের মনও এর সাথে লোভের গতে বাড়িয়ে দেই । সাথে সাথে মনের গহীন চিলেকোঠার থেকে যেন কে ভবিষ্যত বাণী করে – মার্কেট যেভাবে যাচ্ছে একটা ট্রেড নেই না , ১০ পিপ্স তো এমনিই পেয়ে যাবো শুধু ২-৩ মিনিট থাকলেই চলে ! মাঝে মাঝে ভালো প্রফিট হয়েও যায়, কিন্তু বেশীরভাগ সময়ই বড় বড় লসের জম্ম এইখানেই হত । একটা ক্যান্ডেল যেকোনো দিকে একটু ভালো মুভ করলে আমাদের মধ্যে ট্রেড নিতে ইচ্ছা করে, যেমনটা ঐ উপরের গানে, একা সুন্দরী কোন মেয়েকে রাস্তায় যেতে দেখলে একটু ইভটিজিং করার ইচ্ছা জাগে । আমাদের সবসময় ট্রেড নেওয়ার আগে দেখা উচিত বর্তমান এ মার্কেট কোন পজিশনে আছে, অর্থাৎ কোন Trend এ আছে, রেজ্ঞ মাকের্ট কিনা, সামনে কোন Support/ Resistance আছে কিনা, কোন Reversal বা Continuation প্যাটার্ণ হচ্ছে কিনা, Overbought/ Oversold জোন এ আছি কিনা অথবা ব্রেকআউট বা ফেকআউট হবার লক্ষণ দেখা যাচ্ছে কিনা ইত্যাদি । এগুলো এমন কিছু রুলস যা সবসময় একজন ট্রেডার হবার কারণে আমাদের মাথায় রাখতে হয় ।

পরিশেষে শুধু এটিই বলবো, আপনার আবেগই হতে পারে আপনার সবচেয়ে বড় হাতিয়ার । যেটিকে পরিপূর্ণভাবে নিয়ন্ত্রণ করতে পারলে আপনি জিতে যাবেন নয়তো পরাজয় সময়ের ব্যবধানে আপনার দিকেই আসছে । আবেগকে নিয়ন্ত্রন করতে শিখুন, এটি আপনাকে কেউ হাতে ধরে শিখাতে পারবে না ! কারণ সকল মানুষ দেখতে একই রকম হলেও নাম যেমন আলাদা তেমনি তাদের আবেগ প্রকাশের ধরণও ভিন্ন । আবেগ শুধু নাটকে, সিনেমায় কিংবা উপন্যাসের পাতায়ই ভালো মানায় । ফরেক্স ট্রেডিং এর মত একটি হাই প্রফিটেবল, রিস্কি, সিরিয়াস বিজনেসে যেখানে আপনার নিজের অর্থ জড়িত সেখানে আর যাই হোক আবেগের কোন দাম নেই । একটি সঠিক ট্রেডিং সিস্টেম, মানি ম্যানেজমেন্ট এবং ইমোশন কন্ট্রোল করার মানসিকতাই পারে আপনাকে ধারাবাহিকভাবে ফরেক্স থেকে উপার্জনে সাহার্য্য করতে । আর সকল ট্রেডকে প্রফিটে যেতে হবে এমন শর্ত দিয়ে ট্রেডে এন্টি নিবেন না, আমাদের মূল লক্ষ্যই হল মাস শেষে লসের চেয়ে  প্রফিট বেশি হতে হবে ।
সাথে থাকার জন্য ধন্যবাদ।

-নিলয়

(সংগৃহীত ও সংযোজিত)

Please Leave a Reply