আমরা আগে দেখেছি যে সাপোর্ট ও রেজিস্টেন্স যতই শক্তিশালী হোক না কেন, একসময় না একসময় তা ব্রেক করে। তা আবার ফিবোর ক্ষেএেও সত্য।

আমরা আগে বলেছিলাম যে ট্রেন্ডিং মার্কেটে ফিবো সবচেয়ে ভাল কাজ করে। আমরা রিট্রেসমেন্টের সময় ট্রেডে এন্টার করে থাকি। কিন্তু যখন রিভার্সাল হয়, তখন আর ফিবো কাজ করে না।  ফিবোর আরেকটা সমস্যা হল যে সুইং হাই ও সুইং লো নির্নয় করা। কারন সবাই একই টাইম ফ্রেম ব্যাবহার করে না তাই মার্কেটে ভিন্ন মত দেখা যায়।

  ফিবোনাচ্চির ব্যার্থতাএই চার্টটি আগেও দেখেছি। দেখতে পাচ্ছি যে মার্কেট আপট্রেন্ডে আছে আর আমরা রিট্রেসমেন্ট লেভেলে বাই করব। পরবর্তীতে দেখি কি হয়!
ফিবোনাচ্চির ব্যার্থতা৫০% ফিবো লেভেল আপনাকে ভাল একটি এন্ট্রি পয়েন্টের সংকেত দিচ্ছে। তাই আপনি ৫০% ফিবো লেভেল থেকে বাই করার চিন্তা করতে পারেন। পরবর্তীতে দেখলেন যে প্রাইস রিভার্স করেছে।

এ দিয়ে আমরা কি শিখতে পারলাম?

ফিবো লেভেল অন্যান্য টেকনিক্যাল টুলের মত সার্থকতার উচ্চ সম্ভাবনা প্রদান করে, কিন্তু ফিবো সময়তে ব্যার্থও হয়। আপনি এটা বলতে পারবেন না যে কখন প্রাইস রিভার্স করবে। আপনি আগেও দেখেছেন যে, কোন সময় প্রাইস ৩৮.২% ফিবো লেভেল থেকে ব্যাক করেছে আবার ৫০% লেভেলে থেকেও ব্যাক করেছে। এখন আবার দেখলেন যে প্রাইস সবগুলো ফিবো লেভেল ভেঙ্গে রিভার্স করেছে।

বিভিন্ন ট্রেডাররা বিভিন্নভাবে চার্ট অ্যানালাইজ করে। আবার ভিন্ন টাইমফ্রেম ব্যাবহার করে থাকে। আবার ট্রেডারদের মার্কেটের প্রতি নিজস্ব বায়াসনেস অথবা পক্ষপাত ও আছে।

অবশেষে, আমরা ভবিষ্যৎ দেখেতে পারি না। তাই আমরা যা করতে পারি তা হল বিভিন্নভাবে মার্কেট অ্যানালিসিস করে সার্থকতার হার বাড়াতে পারি। আর আমরা তা ফিবোনাচ্চি ক্ষেএেও করতে পারি।

নিয়মিত ফরেক্স টিপস, ট্রিকস এন্ড ইনফরমেশনের জন্য আমাদের লাইক করুন

Please Leave a Reply