ট্রেন্ড লাইন

ফরেক্সে একজন ট্রেডার এর জন্য সবচেয়ে বড় বন্ধু হচ্ছে মার্কেট ট্রেন্ড (ঝোঁক/প্রবণতা। ট্রেন্ড হল মার্কেটের একটি স্বাভাবিক গতিবিধি (মুভমেন্ট), একটি মার্কেট ট্রেন্ড কখনো স্ট্রেইট (সোজাসুজি) গতিতে চলে না। মার্কেট সব সময় প্রগতিশীল অর্থাৎ কখনো ঊর্ধ্বমুখী বা কখনো নিম্নমুখী এবং মাঝে মাঝে সমান্তরাল। যদি প্রত্যেক ক্রমানুযায়ী আপ মুভমেন্ট আগের নিম্নমুখী ট্রেন্ডের আরো নিচের দিকে মোড় নিতে শুরু করে তখন মার্কেট এর নিম্নক্রম প্রবনতা বলে ধরা যায়। আবার প্রত্যেক ক্রমানুযায়ী ডাউন মুভমেন্ট আগের ঊর্ধ্বমুখী ট্রেন্ডের আরো উপরের দিকে মোড় নিতে শুরু করে তখন মার্কেট এর ঊর্ধ্বমুখী প্রবণতা বলে ধরে নেওয়া হয়। এটাই আসলে মার্কেটের প্রকৃত চিত্র।

যদি আপনি সঠিকভাবে ট্রেন্ড বুঝতে পারেন তাহলে অনেক উপকৃত হবেন। মার্কেট ট্রেন্ড বোঝার জন্য ট্রেন্ড লাইন আঁকা হয় । আর ফরেক্সে সাপোর্ট রেসিসটেন্স খুব বেশি কাজ করে । কারণ সাপোর্ট রেসিটেন্টস থেকেই ব্যাংকগুলো প্রাইসের বড় বড় মুভমেন্ট ঘটায় ।সাপোর্ট রেসিসটেন্স নির্ধারণে ট্রেন্ড লাইন খুব গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। মার্কেট ট্রেন্ড ফলো না করার কারণেই শত শত নতুন ট্রেডারের একাউন্ট জিরো হয়। তাই একজন সফল ট্রেডার হতে হলে আপনাকে অবশ্যই মার্কেট ট্রেন্ড বুঝতে হবে। কারণ ট্রেন্ড এর বিপরীতে আপনি কখনো টিকে থাকতে পারবেননা। ট্রেন্ডের সাথেই আপনাকে থাকতে হবে

উপরে কথা থেকে আমরা বুঝলাম
ট্রেন্ড ৩ রকমঃ

  • আপট্রেন্ড (higher lows)
  • ডাউনট্রেন্ড (lower high)
  • সাইডওয়ে ট্রেন্ড (ranging)

ট্রেন্ড লাইন কে সাধারণত Diagonal সাপোর্ট এবং রেসিসটেন্স লেভেল বলে।

আপট্রেন্ডে মার্কেট ঊর্ধ্বমুখী থাকে। তাই আপনি বাই করতে পারবেন। ডাউনট্রেন্ডে মার্কেট নিম্নমুখী থাকে। তাই আপনি সেল করতে পারবেন। সাইডওয়ে ট্রেন্ডে মার্কেট একটি নির্দিষ্ট রেঞ্জের মধ্যে ঘুরতে থাকে। তাই সাইডওয়ে ট্রেন্ডে ট্রেড না করাই ভাল।
মার্কেট এর উর্দ্ধমুখি চলাটাকে Uptrend বলে। মার্কেট নিম্মমুখি চলাটাকে ডাউনট্রেন্ড বলে। আর মার্কেট একটা নির্দিষ্ট জায়গায় রেঞ্জ করলে সেটাকে সাইডওয়ে ট্রেন্ড বলে।
১. আপট্রেন্ড: দুটি বা তিনটি সাপোর্ট কে যখন লাইন টেনে নিলে উপরের দিকে নির্দেশনা পাওয়া যায় তখন বুঝতে হবে মার্কেট আপট্রেন্ডে আছে। তিনটি সাপোর্ট একসাথে মিললেই আপট্রেন্ডের নিশ্চয়তা পাওয়া যায়।
২. ডাউনট্রেন্ড: দুটি বা তিনটি রেজিস্টান্সকে কে যখন লাইন টেনে নিলে নিচের দিকে নির্দেশনা পাওয়া যায় তখন বুঝতে হবে মার্কেট ডাউনট্রেন্ডে আছে। তিনটি রেজিস্টান্স লেভেল একসাথে মিললেই ডাউনট্রেন্ডের নিশ্চয়তা পাওয়া যায়।
৩. সাইডওয়ে ট্রেন্ড:  এটি আসলে কোন ট্রেন্ড না। মার্কেট একটা নির্দিষ্ট পিপের মধ্যে ঘুরাঘুরি করলেই সেটা সাইডওয়ে মার্কেট বলে। এটা স্কাল্পারদের প্রচুর প্রফিট করতে সাহায্য করে।

ফরেক্সে কিভাবে ট্রেন্ড লাইন ব্যাবহার করবেন – How to Use Trend Lines in Forex?

:

ট্রেন্ড লাইন

ট্রেন্ডলাইন খুব সাধারন অ্যানালিসিস হলেও এটা অনেক গুরুত্বপূর্ন। ট্রেন্ডলাইনের আবার সবচেয়ে বেশি অপব্যাবহার করা হয়।  যদি ট্রেন্ডলাইন ঠিক করে আকা হয় তাহলে এটা অন্যান্য মেথডের মত প্রাইসের সঠিক ধারা দেখাবে।আমার উপরের চিত্রটা লক্ষ করলেই বুঝবেন কিভাবে ট্রেন্ড আঁকতে হয়। একটি ট্রেন্ড লাইন আঁকতে দুই বা তার অধিক বিন্দু প্রয়োজন। যত বেশি বিন্দু নিয়ে ট্রেন্ড লাইন আঁকা হবে ট্রেন্ড লাইন তত বেশি দৃঢ় বা ভ্যালিড হবে। মাঝেমাঝে ট্রেন্ড লাইন আঁকার জন্য দুইটির বেশি বিন্দু খুঁজে পাওয়া কঠিন। টেকনিক্যাল এনালাইসিসে ট্রেন্ড লাইন খুব গুরুত্বপূর্ণ হলেও সব চার্ট –এ ট্রেন্ড লাইন আঁকা সম্ভব হয় না। মাঝে মাঝে উচ্চ ও নিম্ন বিন্দুগুলোকে যোগ করা খুব কঠিন হয়ে দাড়ায়। মাঝেমাঝে উচ্চ ও নিম্ন বিন্দুগুলো সজ্জিত করে ট্রেন্ড লাইন আঁকা যায় না এবং এক্ষেত্রে ট্রেন্ড লাইন আঁকার চেষ্টা না করাই ভালো। টেকনিক্যাল এনালাইসিস এর সাধারন নিয়ম হল, পরপর দুইটি উচ্চ বা নিম্ন বিন্দু কে যোগ করে ট্রেন্ড লাইন আঁকা এবং ৩য় বিন্দুটি ট্রেন্ড লাইন এর ভ্যালিডেশন নির্ণয় করে। দুর্ভাগ্যক্রমে বেশিরভাগ ট্রেডাররাই ট্রেন্ডলাইন ঠিক করে আকে না আর তারা লাইনগুলোকে নিজের ইচ্ছামত মার্কেটে ফিট করার চেষ্টা করে।

আরো সহজ করে বলতে গেলে ট্রেন্ড লাইন আঁকার জন্য মেটা ট্রেডার এর টুলস থেকে ট্রেন্ড লাইন টুল দিয়ে লাইন টানতে হয়।
লো পয়েন্টগুলো একটি ট্রেন্ড লাইনের মাধ্যমে কানেক্ট করতে হয় এবং হাই পয়েন্টগুলো একটি ট্রেন্ড লাইনের মাধ্যমে কানেক্ট করতে হয়।
যদি কোন ক্যানডেল ট্রেন্ড লাইন ক্রস করে ওপরে বা নিচে চলে যায়, তখন বুঝতে হবে ট্রেন্ড লাইন ব্রেক হয়েছে।

সঠিকভাবে ট্রেন্ডলাইন ড্র করতে আপনাকে ২টা মেজর টপ অথবা দুইটা বটম খুজে বের করতে হবে । আর দুই এর বেশি টপ হলে তো ভাল ।

সুতরাং সিস্টেম মত ট্রেন্ডলাইন আঁকবেন। নিজের মন মত জোর করে ট্রেন্ড আঁকলে কোন ফলই হবেনা। খাড়া উপরের দিকে বা নিচের দিকে স্পাইকগুলা কোন ট্রেন্ড নির্দেশনা দেয়না। ট্রেন্ড এ নিউজ স্পাইকের কোন গুরুত্ব নেই। তাই ট্রেন্ড লাইন আকার সময় নিজউ ইফেক্ট এর লম্বা লম্বা বাঁশ এর মত স্পাইকগুলা ধরার দরকার নেই। এগুলা কোন ট্রেন্ডের অংশ না এগুলা ট্রেডারদের বাঁশ দেয়ার ক্যান্ডেল।

ফরেক্স মার্কেটে তিন(৩) ধরনের ট্রেন্ডলাইন আমরা দেখতে পাই ।

∇ আপট্রেন্ড – যখন প্রাইস হাইয়ার লো দেখায়
ডাউনট্রেন্ড – যখন  প্রাইস লোয়ার হাই দেখায় ।
সাইডওয়ে/ফ্ল্যাট ট্রেন্ড – যখন প্রাইস একটা রেঞ্জের মধ্যে চলাচল করে।

নিচের চিত্রটি দেখুন :

trend line

উপরের চার্ট দেখে আপনি ধারনা করে নিতে পারেন -কোনটা কোন ধরনের ট্রেন্ড।

ট্রেন্ডলাইন ড্রইং করার সময়ে কিছু গুরুত্বপূর্ন বিষয় অবশ্যই মনে রাখবেন:

∇ ট্রেন্ডলাইন ড্র করতে ২টা টপ অথবা বটম প্রয়োজন, কিন্তু ট্রেন্ড নিশ্চিত করতে ৩য় টপ অথবা বটম অবশ্যই নিশ্চিত করতে হবে। ট্রেন্ডলাইন যত খাড়া হবে সেটা ততো অনির্ভরশীল হবে।

∇ ট্রেন্ডলাইন যত সাপোর্ট ও রেজিস্টেন্স টেস্ট করবে, তা ততো নির্ভরযোগ্য হবে এবং শক্তিশালী ।

∇ টেন্ডলাইনকে মার্কেটে ফিট করার চেষ্টা করবেন না। যদি ট্রেন্ডলাইন ফিট না হয়, তাহলে সেটা সঠিক ট্রেন্ডলাইন না।

∇ ভুলেও ট্রেন্ডলাইনকে নিজের মনগড়া বা ইচ্ছেমতো করে অংকন করবেন না । তাতে ভুল হবার সম্ভাবনা বেশি থাকবে ।

তো আমি কিভাবে ট্রেন্ডের সুবিধা গ্রহণ করব?
*****************************
যারা বুদ্ধিমান তারা ট্রেন্ড থেকেই কিন্তু প্রফিট নেয় ট্রেন্ডের সাথে থেকেই। আপট্রেন্ডে বাই ছাড়া কখনো সেল দিবেনা তারা। ডাউনট্রেন্ডে সেল ছাড়া বাই কখনো দিবেনা তারা। আর স্কাল্পাররা ছাড়া লংটার্ম ট্রেডাররা কখনো সাইডওয়েতে ট্রেড পছন্দ করেননা।
ট্রেন্ড খুজতে হলে আপনাকে অবশ্যই হায়ার টাইমফ্রেমেই খুজতে হবে। লোয়ার টাইমফ্রেমে আপনি ট্রেন্ড এর কনফার্মেশন পাবেননা।
এখন আসেন ট্রেন্ড এ এন্ট্রি কিভাবে নিবেন? হা সেটা কিন্তু আসলে আপনাকে টেকনিক্যালিই বুঝত হবে। নরমালি আপট্রেন্ডে সাপোর্ট থেকেই এন্ট্রি নেয়া হয়। আর ডাউনট্রেন্ডে রেজিস্টান্স থেকেই এন্ট্রি নেয়া হয়। তার সাথে আপনাকে সাপোট রেজিস্টান্স পিভট, ফিবোনাক্কি রিট্রেসমেন্ট এগুলা অবশ্যই বুঝতে হবে।
আমাদের অনেকেরই একটা অভ্যাস আছে যে মার্কেট কিছুটা আপ হলেই সেল দিয়ে দেই। আর কিছুটা ডাউন হলেই বাই দিয়ে দেই। এটা কিন্তু ট্রেন্ডি মার্কেটে বিপদজনক যদি আপনার এন্ট্রিটা বিপরীতে পড়ে যায়। আপট্রেন্ডে কখনো সেল দেয়ার চেষ্টা করবেননা। ডাউনট্রেন্ডে কখনো বাই দেয়ার চেষ্টা করবেননা।
ট্রেন্ড লাইন ব্রেকআপ
*************
একটা ট্রেন্ড কিন্তু একসময় তার শক্তি হারিয়ে দূর্বল হয়ে যায়। তখন সে রিভার্স শুরু করে। তাই ট্রেন্ড এর শেষ দিকে আর ট্রেডে না থাকাই ভাল। ট্রেন্ড কখন রিভার্স করবে সেটা বলা মুশকিল। কারণ মার্কেট আগামী ৫ মিনিট পর কই যাবে এটাতো আমরা কেউই বলতে পারিনা। সেটা সম্ভবও না।
তাই অনেকে অনেক সিস্টেম এপ্লাই করে কিছু কনফার্মেশন পেয়ে সেটা বুঝে যায়।
মনে করেন মার্কেট একটা নির্দিষ্ট গতিতে চলার পর তার ট্রেন্ড লাইনে এসে স্থির হয়ে আছে এখন দুটি ব্যাপার ঘটতে পারে এটা আবার তার নির্দিষ্ট ট্রেন্ড এ চলা শুরু করতে পারে অথবা পুলব্যাক করতে পারে। এখানে দুটিরই সম্ভাবনা আছে। এক্ষেত্রে আপনাকে হিস্টোরী দেখে জাষ্টিফাই করতে হবে এটা কোন আগের স্ট্রং সাপোর্ট বা রেজিস্টান্স এ আছে কিনা। যদি থাকে তাহলে সেটা ব্রেক করার সম্ভাবনাই বেশি। হয়ত ট্রেন্ড শেষ হয়ে এবার রিভার্সাল শুরু হতে যাচ্ছে। সুতরাং এই জায়গায় সতর্কতা অনেক দরকার।
একটা কথা মনে রাখবেন ফরেক্স এ নিজের একটা সিস্টেম বানাতেই হবে। সেটাকে দিন দিন ডেভেলপ করতেই। শুধু ট্রেন্ডলাইন আর সাপোর্ট রেজিস্টান্স দিয়ে একটি সফল সিস্টেম বানাতে পারেন।
নতুন যারা মার্কেটে আসে তারা শিখতে চায়না। তারা এটা বুঝেনা যে এই মার্কেট এর শিখার কোন বিকল্প নেই। আমাদের প্রথম অবস্থায় বাংলাভাষায় কোন সুযোগইতো ছিলনা শেখার। বর্তমানে কতসাইট আছে বাংলায়। অনেক ট্রেডারই তাদের ট্রেডিং নলেজ শেয়ার করছে। মানুষের মনমানসিকতা দিন দিন উদার হচ্ছে। আমরা জানার অভাবে লস করেছি। লস করে শিখেছি। আপনারা কেন লস করবেন এমন সুবর্ণ সময়ে?
জাস্ট সিম্পল একটা সিস্টেমে চলেন। নিত্য নতুন স্ট্রাটেজি আর সিস্টেম বানাবেননা। একটাকেই ডেভেলপ করেন। মানি ম্যানেজমেন্ট মানেন। সফল হবেনই।
আমি এগুলা আপনাদের উপকারের জন্য দিচ্ছিন। আমার নিজের উপকারের জন্যই। আমি এগুলা লিখি আর আমার জানার ক্ষেত্রটা আরো সমৃদ্ধ হচ্ছে। দিনের নির্দিষ্ট একটা সময় টার্মিনালের সামনে থাকেন। বাকি সময় শুধু স্টাডি করেন। অনলাইনে হাজার হাজার সাইট আছে। ইউটিউবে ভিডিও টিউটোরিয়াল এর অভাব নেই।

যেমন ট্রেন্ড সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে পারবেন এই ভিডিও টিউটোরিয়ালটি দেখলে।

(Video will be provided here)

উপরের লেখা কম বুঝে থাকলে  নিচের সহজ লেখাটি আপনি অবশ্যই বুঝবেন :-

ফরেক্স ট্রেন্ড লাইন

ফরেক্স চার্টে অঙ্কিত ট্রেন্ড লাইন খুবই মুল্যবান তথ্য দেয়।ট্রেন্ড লাইন শুধু বর্তমান প্রাইসের ট্রেন্ড (দিকনির্দেশনা) দেখায় না, এটি মাকেটের সার্পোট এবং রিজিসটানস লেভেল পয়েন্টও বর্ণনা করে থাকে। উপরন্তু, এটি ভাল ট্রেড এন্ট্রি এবং একজিট, ভাল প্রফিট টেকিং এবং স্টপ লস পয়েন্ট নির্ধারণ করতে সাহায্য করবে।

 

এটি খুবই সহজ, কিন্তু ট্রেন্ড রিভাসল সম্ভবনার জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ‌এবং বেশ শক্তিশালী ইন্ডিকেটরস টুলস হিসেবে ব্যবহৃত হয়। সুতরাং, আমাদের ফরেক্স ট্রেডিং-এ এটি লাভজনক বন্ধু হতে পারে যদি আমরা ট্রেড লাইন আঁকা শিখতে পারি।

 

আপট্রেন্ড মাকেটে ট্রেন্ড লাইন নিচে এবং ডাউনট্রেন্ড মাকেটে ট্রেন্ড লাইন উপরে প্যার্টান ফরমেশনে আকতে হয়।

ট্রেন্ড লাইন

প্রাইস মুভের সর্বনিম্ন সুইং-পয়েন্ট থেকে ফরেক্স ট্রেন্ড লাইন আঁকা হয়। অন্তত দুটি সর্বনিম্ন লো সংযুক্ত করে ট্রেন্ড লাইন তৈরি করতে হবে।

 

প্রাইস মুভের সর্বোচ্চ সুইং-পয়েন্ট থেকে ফরেক্স ট্রেন্ড লাইন আঁকা হয়। অন্তত দুটি সর্বোচ্চ হাই সংযুক্ত করে ট্রেন্ড লাইন তৈরি করতে হবে।

 

মনে রাখতে হবে যে, একই চার্ট হলেও বিভিন্ন ব্রোকারে “হাই” এবং “লো” সামান্য ভিন্ন হতে পারে। ফরেক্স কোট-এর কারণে ব্রোকার থেকে ব্রোকার এটি ভিন্ন হয়ে থাকে।

 

যখন প্রাইস লাইনকে বিবেচনা(সম্মান) করে, তখন ঐ ট্রেন্ড লাইনটি তার বৈধতা নিশ্চিত করে। যত বেশি “সর্বনিম্ন লো/সর্বোচ্চ হাই” ট্রেন্ড লাইনে যুক্ত হয় তা তত বেশি শক্তিশালী হয়ে যায়।

ফরেক্স ট্রেন্ড লাইন

প্রধান এবং অভ্যন্তরে ডাউন ট্রেন্ড লাইন আকাঁর আরেকটি উদাহরণ-

ডাউন ট্রেন্ড লাইন

চ্যানেল ট্রেডিং সম্পর্কে কিছু কথা

আরো পড়ুন

লাইনগুলো দিয়ে কিভাবে ট্রেড করবেন?

ট্রেন্ড লাইন রিফিউজ স্ট্রাটেজি

নিয়মিত ফরেক্স টিপস, ট্রিকস এন্ড ইনফরমেশনের জন্য আমাদের লাইক করুন

 

3 COMMENTS

Please Leave a Reply